শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

পালং শাক কমবেশি আমাদের সবারই প্রিয় শাক। এ শাক সহজলভ্য হওয়ায় হাতের নাগালেই পাওয়া যায়। কিন্তু আপনি জানেন কি এ শাকে আছে নানান উপকারি উপাদান?

এমনকি এ শাক স্ট্রোকের ঝুকিও কমিয়ে থাকে। পালং শাক দৃষ্টিশক্তির উন্নতির পাশাপাশি শরীরের রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে।

এই শাক পেশিকে শক্তিশালী এবং হার্ট অ্যাটাক রোধে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। এছাড়াও আরো অনেক রোগের চিকিৎসাতে পালং শাক উপকারে আসে।

বিশ্বব্যাপী একটি গবেষনায় তার প্রমাণ মিলে।

পালং শাক কেনো খাবেন? চলুন জেনে নেওয়া যাক-

  • দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে- 

পালং শাকে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে বিটা-ক্যারোটিন, লুটেইন এবং জ্যান্থিন। এগুলো রেটিনার ক্ষমতা বাড়ায় এবং দৃষ্টিশক্তির উন্নতিতে গুরুত্বপূর্ন ভুমিকা পালন করে।

পালং শাক ভিটামিন এ-এর ঘাটতি পূরণ করতে বিশেষ সহায়ক এবং সেই সঙ্গে আই আলসার ও ড্রাই আইয়ের সমস্যা সমাধানে সমান ভাবে কাজ করে।

  • স্মৃতিশক্তি বাড়াতে-

পালং শাকে আছে পটাশিয়াম, ফলেট এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট।  এই শাক যদি প্রতিদিন খেতে পারেন তাহলে স্মৃতিশক্তি হয়ে উঠবে প্রখর এবং মারাত্মক শক্তিশালি।

এবং এতে আছে পটাশিয়াম যা মনোযোগ বৃদ্ধিতে অসাধারণ কাজ করে।

  • রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখে-

এই শাকে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম। এই খনিজটি শরীরে প্রবেশ করে সোডিয়াম এবং লবনের ভারসাম্য ফিরিয়ে আনে।

এবং এতে স্বাভাবিকভাবেই রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাওয়ার আশঙ্কা হ্রাস পায়।

পালং শাকে থাকা ফলেট ও রক্তচাপ স্বাভাবিক রাখতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

  • স্ট্রোকের আশঙ্কা কমাতে- 

পালং শাকে লুটেইন নামে একটি বিশেষ উপাদানের সন্ধান পাওয়া যায়। এই উপাদানটি রক্তের ভেসেলের গভীরে কোলেস্টেরল জমে থাকার হার হ্রাস করে।

ফলে স্বাভাবিকবাবেই স্ট্রোক, অ্যাথেরোস্কেলোসিস এবং হার্ট অ্যাটাক হওয়ার আশঙ্কা কমে যায়।

 

তাই চলুন, আজ থেকে নিয়মিত সহজলভ্য পালং শাক খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলি এবং সুস্থ থাকি।

Facebook Comments
%d bloggers like this: