শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

দুই মাসের শিশুকন্যাকে হত্যা করে তারপর সেপটিক ট্যাংকে ফেলে দিলেন মা। পুলিশ ধারনা করছে পরকীয়া অথবা কন্যাশিশু হওয়ায় তাকে হত্যা করা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, সেদিন শিশুকন্যা আয়ার সঙ্গে বাড়িতেই ছিলেন মা সন্ধ্যা জৈন। দুপুরের দিকে আয়া ছাদে যান। কিছুক্ষণ পর শ্বশুর এসে দেখেন পুত্রবধূ অচেতন অবস্থায় পড়ে আছেন।

ঘরে শিশুটি নেই। এরপর সন্ধ্যায় সবাইকে জানানো হয়, তার শিশুটিকে কেউ চুরি করে নিয়ে গেছে। অভিযোগ করা হয় থানায়। পুলিশ ঘটনার তদন্তে নেমে বেশ কিছু সন্দেহজনক তথ্য পায়।

একপর্যায়ে কড়া জিজ্ঞাসাবাদের পর ভেঙে পড়েন মহিলা। পরবর্তীতে আসল ঘটনা জানতে পারে পুলিশ। মা সন্ধ্যা জৈন জানায়, তিনি নিজেই কন্যাসন্তানকে গলা টিপে হত্যা করেছেন।

এরপর সেপটিক ট্যাংক থেকে উদ্ধার করা হয় দুধের শিশুর মরদেহ। প্রাথমিকভাবে পুলিশ ধারণা করছে, বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কের জেরে সন্তানকে খুন করা হয়েছে।

কন্যা সন্তান হওয়ার ‘হতাশা’ থেকে এমন ঘটনা ঘটিয়েছে কিনা সেটাও খতিয়ে দেখছে তারা।

ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কোলকাতার বেলেঘাটায় একটি বহুতল ভবনে। এ ঘটনায় মা সন্ধ্যা জৈনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

Facebook Comments
%d bloggers like this: