শেয়ার করুন বন্ধুদের সাথে

জাতীয় সংসদ অধিবেশনে হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইসলামের ইতিহাসে ৫৬০টি মসজিদ নির্মাণের নির্দেশনার মধ্য দিয়ে এক মহৎ কাজ করেছেন। যা এর আগে কোনো ইসলামী রাষ্ট্রনায়ক করতে পারেন নাই। তিনি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেছেন। তিনি ইসলামের ইতিহাসে এক অনন্য উচ্চতায় আসীন হয়েছেন। তাই শেখ হাসিনার নাম উচ্চারণ করার পূর্বে তার প্রতি সম্মানসূচক একটি শব্দ উচ্চারণ করতে চাই, ‘হজরত শেখ হাসিনা’ তোমাকে অভিবাদন।

স্বপন বলেন, পৃথিবীর ইতিহাসে অনেক মুসলিম শাসক ও রাষ্ট্রপ্রধান মহৎ কর্ম করে তার নিজের দেশে এবং বিশ্ব ইতিহাসে অমরত্ব লাভ করেছেন। এসময় তিনি খলিফা হজরত ওমর ফারুক (রা.) ৬৩৪ খ্রিষ্টাব্দ থেকে ৫৪৪ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত এই এক দশক শাসনামলে পৃথিবীর ইতিহাসে কল্যাণের ইতিহাসে এক ম্যাগনাকার্টার কথা উল্লেখ করেন।

শেখ হাসিনা হজরত ওমর ও ওসমানের পথ অনুসরণ করেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, ওমর (রা.) মতো শেখ হাসিনা রাতের অন্ধকারে মানুষের বাড়ি বাড়ি ঘুরতে পারেন না। তখন জনসংখ্যা ছিল কম। এখন ১৭ কোটি মানুষের গৃহে যদি যেতে চান তার এক জনমে পৌঁছাতে পারবেন না। এ কারণে তিনি সারা দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে তথ্য সংগ্রহ করে হজরত ওমর ও ওসমানের অনুসরণ করে মানবতার কল্যাণ করছেন। তিনিই প্রথম ইসলামের ইতিহাসে এমন একজন বিখ্যাত নেতৃত্ব যিনি দুঃস্থ মানুষের জন্য বিভিন্ন ধরনের কল্যাণ ভাতা চালু করেছেন। তিনি (প্রধানমন্ত্রী) ১০ লাখের অধিক রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়েছেন। কওমি, ইবতেদায়ী মাদরাসাকে স্বীকৃতি দিয়েছেন। আলেমদের জাতীয় জীবনে অবদান রাখার সুযোগ দিয়েছেন।

সোমবার (৩ ফেব্রুয়ারি) রাতে ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়ার সভাপতিত্বে সংসদ অধিবেশনে হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এসব কথা বলেন।

Facebook Comments
%d bloggers like this: